সময় বাড়ছে আয়কর রিটার্ন দাখিলের

আলোকিত প্রজন্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:০০ পিএম, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২ | ২৮৮

আয়কর রিটার্ন জমা দেওয়ার সময় আরো বাড়ানো হচ্ছে। তবে রিটার্ন জমার সময় কতোদিন বাড়ানো হবে তা জানানো হয়নি। আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত এ সময় বাড়ানো হতে পারে বলে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) একটি সূত্রে জানা গেছে। গত কয়েকদিন ধরেই ব্যবসায়ী ও করদাতারা সময় বাড়ানোর জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানিয়ে আসছিলে।

পূর্ব নির্ধারিত ঘোষণা অনুযায়ী আয়কর রিটার্ন দাখিলের শেষ দিন আজ ৩০ নভেম্বর। তবে গতকাল মঙ্গলবারের তথ্য অনুযায়ী মোট ২২ লাখ আয়কর রিটার্ন জমা পড়েছে। এবার অন্তত ৫০ লাখ রিটার্ন জমা পড়বে বলে আশা করছে এনবিআর। আজ বুধবার যেকোনো সময় রিটার্ন জমার তারিখ বাড়ানোর ঘোষণা আসতে পারে। এছাড়া আয়কর দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সেমিনারে এনবিআর সদস্য মাসুদ সাদিক তার বক্তব্যেও এমন ইঙ্গিত দিয়েছেন।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার করোনার দীর্ঘমেয়াদি নেতিবাচক প্রভাব ও চলমান বিশ্ব অর্থনৈতিক সংকটময় পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে ২০২২-২০২৩ করবর্ষের আয়কর রিটার্ন দাখিলের সময় এক মাস বাড়ানোর আবেদন করেছে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই।

এছাড়া ২০২২-২০২৩ করবর্ষের পরিপত্র বিলম্বে পাওয়ায় ও বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দার প্রতিকূল পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে আয়কর রিটার্ন দাখিলের সময় দুই মাস বাড়ানোর আবেদন করেছিল দেশের ৬৭টি কর আইনজীবী সমিতি। আর সমিতিগুলোর দাবির সঙ্গে একমত পোষণ করে তাদের কেন্দ্রীয় সংগঠন বাংলাদেশ ট্যাক্স ল ইয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন।

করোনা মহামারি বিবেচনায় এ বছর আয়কর মেলা না হলেও এনবিআরের আওতাধীন সারা দেশে ৩১টি কর অঞ্চলে মেলার মতো সেবা দেওয়া হচ্ছে। প্রতিটি কর অঞ্চলে জোনভিত্তিক বুথ, ই-টিআইএন ও তথ্যসেবা বুথ রাখা হয়েছে।

দেশে বর্তমানে ৮২ লাখের বেশি কর শনাক্তকারী নম্বরধারী (টিআইএন) করদাতা রয়েছেন। তবে এখন পর্যন্ত ২২ লাখের মতো রিটার্ন দাখিল করা হয়েছে বলে জানা গেছে। শেষদিনে আয়কর অফিসে করদাতাদের ব্যাপক ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।  

২০১৬ সালে আয়কর অধ্যাদেশে পরিবর্তন এনে ৩০ নভেম্বর জাতীয় কর দিবসের পর রিটার্ন জমা না নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। তাই সময় বাড়ানোর পথটি বন্ধ হয়ে যায়। যদিও গত দুই বছর করোনা মহামারির কারণে একমাস সময় বৃদ্ধি করা হয়েছিল। এবারও সেই পথে হাঁটছে এনবিআর।