হলুদে সেজেছে বাসাইল, প্রকৃতি প্রেমীদের ছবি তোলার হিড়িক

বাসাইল (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৪:০৪ পিএম, শুক্রবার, ৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৬৯

টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় হলুদ ফুলে ফুলে ছেয়ে গেছে কৃষকের ফসলের মাঠ। পুরো উপজেলার বিভিন্ন মাঠজুড়ে যত দূর চোখ যায়, দেখা যায় হলদে রঙের সরিষা ফুল। বিশাল এ মাঠ দূর থেকে দেখে মনে হয় বিশাল আকৃতির হলুদ চাদর বিছানো।

প্রকৃতির অপরূপ সৌন্দর্যে ভরপুর হয়ে উঠেছে সরিষার হলদে মাঠগুলো। পৌষের ভর শীতেও মনে হচ্ছে প্রকৃতিতে বসন্তের ছোঁয়া। ধুলা আর কুয়াশায় ধূসর প্রান্তর। এর মাঝেও দূর থেকে চোখে ভেসে উঠে সরিষার হলুদ। বিস্তীর্ণ মাঠের চারদিকে হলুদের সমাহার। এই হলদিয়া মাঠে মধু সংগ্রহে আসা-যাওয়া করছে প্রজাপতি, মৌমাছি, পোকামাকড় থেকে শুরু করে অন্যান্য পাখিরাও।
উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চলের সরিষার মাঠ ঘুরে দেখা যায়, নানা রঙের প্রজাপতিতে উড়ছে সরিষার খেতে। রং-বেরঙের প্রজাপতি ডানা ঝাপটানো হৃদয়ে জাগাবে নবতর আনন্দ। কোথাও ঝলক দিয়ে উঠছে কালো ডানায় হলুদ-লালের মিশ্রণ, নীল, সবুজ, লাল-নীলের ডোরাকাটা বিভিন্ন রঙের প্রজাপতি উড়ে বেড়াচ্ছে। প্রজাপতিরা এখানে আসে বিশ্রাম নিতে। অনেক দূর উড়ে উড়ে ঘুরে বেড়ানোর পর সরিষার মাদকতা তাদের আকৃষ্ট করে।

সরিষার ঝাঁজালো ঘ্রাণে মুখরিত চারদিক। বেশির ভাগই ফুলে এই সময়ে গন্ধ থাকে না, কেবল সরিষা ফুল ছাড়া। ভ্রমর মধু খুঁজে ফিরছে এই ফুলে, মৌয়ালরা মৌমাছি চাষ করে এই মধু সংগ্রহ করছেন সরিষার মাঠে।

সরিষা মাঠে ফুলের সৌন্দর্য উপভোগ করতে আসছে বিভিন্ন বয়সের নারী, পুরুষ, শিশুসহ বিনোদনপ্রেমীরা। হলুদ সরিষা ফুলের সাথে ছবি-সেলফি তুলতে, ভিডিও ধারণের জন্য ভিড় জমাচ্ছেন প্রকৃতি প্রেমীরা।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, গত বছর ৪ হাজার ৮২০ হেক্টর জমিতে সরিষা আবাদ হয়েছিল। তবে এ বছর ৫ হাজার ৪৫০ হেক্টর জমিতে সরিষার আবাদ হয়েছে।

উপজেলা কৃষি নাজনীন আক্তার জানান, রবি  প্রণোদনার আওতায় এবার কৃষকদের মাঝে সরিষার বীজ, সার বিতরণ করা হয়েছে। তাই লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে সরিষা চাষ হয়েছে। চাষিরা ভালো ফলন পাবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।